অনন‍্য-বাংলা : একটি ব‍্যাকরণের ব্লগ

Tuesday, September 4, 2018

বাংলা মৌলিক স্বরধ্বনি

বাংলা ভাষায় মৌলিক স্বরধ্বনি ৭টি। যথা, অ,আ,ই,উ,এ,ও,অ্যা।
এখানে মনে রাখতে হবে, বাংলা বর্ণমালায় উপস্থিত অন‍্যান‍্য স্বরগুলো মৌলিক স্বর নয়। যেমন, ঈ স্বরটি ই স্বরের‌ই দীর্ঘ রূপ। আবার ঋ স্বরটি বাংলায় 'রি' রূপে উচ্চারিত হয়। ঐ,ঔ -- এরা দুটি স্বরের যোগে তৈরি যৌগিক স্বর। অপরদিকে অ্যা স্বরটি বাংলা উচ্চারণে বহুল ব‍্যবহৃত হলেও বর্ণমালায় এর নিজস্ব চিহ্ন নেই।

এখন আমরা একে একে বাংলা মৌলিক স্বরগুলির পরিচয় নেবো। কিন্তু তার আগে উচ্চারণ-কৌশল অনুসারে স্বর কত প্রকার হয় তা বিস্তারিত জেনে নিই।


সম্মুখ তথা প্রসারিত স্বর: 

যে স্বরগুলির উচ্চারণের সময় জিহ্বা সামনের দিকে থাকে, তাদের সম্মুখ স্বর বলে। এগুলি উচ্চারণ করার সময় আমাদের ওষ্ঠদ্বয় প্রসারিত হয়, অর্থাৎ ওষ্ঠপ্রান্ত দুটি পরস্পর থেকে দূরে যায়। সোজা ভাষায় বললে মুখছিদ্র আড়াআড়ি ভাবে বড়ো হয়। এ স্বরটি উচ্চারণ করে দেখলেই ব‍্যাপারটা বোঝা যাবে। এই কারণে এদের প্রসারিত স্বর‌ও বলে।

পশ্চাৎ তথা কুঞ্চিত স্বর:

এই স্বরগুলির উচ্চারণের সময় জিহ্বা খানিকটা পিছিয়ে যায়। তাই এদের পশ্চাৎ স্বর বলা হয়। এদের উচ্চারণের সময় ওষ্ঠপ্রান্ত দুটি কাছাকাছি আসে(প্রসারিত স্বরের বিপরীত)। এর ফলে ওষ্ঠ কুঞ্চিত হয়। উ স্বরটি উচ্চারণ করলে ঠোঁটের কুঞ্চিত বা কুঁচকানো অবস্থা‌টা স্পষ্ট বোঝা যাবে। তাই এদের কুঞ্চিত স্বর‌ও বলে।

উচ্চ তথা সংবৃত স্বর:

যে স্বরগুলির উচ্চারণের সময় জিহ্বা মুখবিবরের উপরের দিকে অবস্থান করে, তাদের উচ্চ স্বর বলে। এদের উচ্চারণ করার সময় মুখছিদ্র উপর-নিচে অল্প একটু খোলে। অর্থাৎ দুই ঠোঁটের মধ‍্যবর্তী দূরত্ব কম হয়। (প্রসারিত-কুঞ্চিত‌র ক্ষেত্রে আমরা ডাইনে বাঁয়ে ফাঁকটা হিসেব করেছি, এক্ষেত্রে উপর নিচের ফাঁক হিসেব করব।) এই কারণে এদের সংবৃত স্বর‌ও বলে।

সংবৃত স্বরের একটু নিচে উচ্চারিত হয় অর্ধসংবৃত স্বর। এদের ক্ষেত্রে মুখছিদ্র উপর-নিচে অল্প একটু বেশি করে খোলে। এদের অবস্থান‌টিকে বলে উচ্চ-মধ্য।

নিম্ন বা বিবৃত স্বর:

এই স্বরকে উচ্চারণ করার সময় জিহ্বা মুখবিবরের একেবারে নিম্নে অবস্থান করে। নিম্ন-স্বরকে উচ্চারণ করার সময় মুখছিদ্র পুরোপুরি হাঁ হয়ে যায়। তাই একে বিবৃত স্বর বলা হয়।

নিম্ন স্বরের একটু উপরের অবস্থনকে বলে নিম্ন-মধ‍্য এবং ঐ অবস্থানের স্বরগুলির আর এক নাম অর্ধ-বিবৃত।

এখন আমরা দেখে নেবো বাংলা মৌলিক স্বরগুলি কে কোন শ্রেণিতে পড়ে:

সম্মুখ, প্রসারিত, সংবৃত।

উ 

পশ্চাৎ, কুঞ্চিত, সংবৃত।

সম্মুখ, প্রসারিত, অর্ধসংবৃত।

পশ্চাৎ, কুঞ্চিত, অর্ধসংবৃত।

অ্যা

সম্মুখ, প্রসারিত, অর্ধবিবৃত।

পশ্চাৎ, কুঞ্চিত, অর্ধবিবৃত।

নিম্ন, কেন্দ্রীয়, বিবৃত। আ-কে কেন্দ্রীয় বলার কারণ, একে উচ্চারণ করার সময় জিহ্বা মুখবিবরের মাঝামাঝি অবস্থান করে, সম্মুখ বা পশ্চাতে যায় না 

**বাংলা মৌলিক স্বরগুলির উচ্চারণ-স্থান দেখার জন‍্য "বাংলা মৌলিক স্বর" কথাটি লিখে গুগলে ইমেজ সার্চ করলেই বাংলা মৌলিক স্বরের ছকটি পাওয়া যাবে। 

[সব পোস্ট দেখতে এখানে ক্লিক করে সূচিপত্রে যান]

No comments:

Post a Comment